শনিবার (সকাল ৭:৫১), ৫ই কার্তিক, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
চাকরির খবরপড়ালেখাবিডি টিপস

জব ইন্টারভিউ কি??? আসুন জানি

জব ইন্টারভিউ কি?

প্রত্যেকের জীবনে চাকরির ক্ষেত্রে একটি  সাক্ষাৎকার এর মুখোমুখি হতে হয় এবং তারা ভীতিকর হয়ে হয়ে পরে। কারন সেখানের পরিবেশ অনেকটাই অপরিচিত । 

সমস্ত চাকরির ইন্টারভিউ নিয়োগকর্তা আপনার সাথে দেখা করার সুযোগ দিচ্ছে এবং তারা আপনাকে একটি চাকরি প্রদানের ক্ষেত্রে আপনি যোগ্য কিনা তা যাচাই করে থাকে। এটি ঠিক আছে এবং আপনাকে যাচাইয়ের ফলে আপনার বেকার নামক অভিশাপ থেকে মুক্ত করার সুযোগ দিচ্ছে।

আসলে, চাকরির ইন্টারভিউ কি??? খায় না মাথায় দেয়?

নিয়োগকর্তা (এবং আপনার ভবিষ্যত বস)  আপনার কর্মজীবন, ব্যক্তিত্ব এবং জীবন সম্পর্কে প্রশ্ন জিজ্ঞাসা করে থাকে এবং আপনি আপনার নিজের মত করে তাদের প্রশ্নের সঠিক উত্তর দিয়ে নিজেকে যোগ্য প্রমান করাবেন । চাকরির ইন্টারভিউ কে সহজ ভাবে নিলে সেতা হবে সহজ অথবা খুব কঠিন পরিক্ষা।

 

যাইহোক, আপনি যদি নিজেকে চাকরির জন্য যোগ্য মনে করে থাকেন তাহলে চাকরির ইন্টারভিউ দেয়ার জন্য প্রস্তুত হন। অন্যথায় আগে নিজেকে যোগ্য করে তুলুন। আপনি একটি জিনিস মাথায় রাখবেন কেন তারা আপনাকে তাদের  কোম্পানিতে আপনাকে নির্ধারিত পারিশ্রমিক দিবে? নিশ্চয়ই আপনাকে তাদের মনের মত হতে হবে।

 

শুধুমাত্র, এই ৫টি বিষয় মাথায় রাখুন এবং আপনিই লুফে নিন আকর্ষণীয় চাকরিঃ

১. কোন ধরনের সাক্ষাৎকার এটি? ভাবুন

মূলত তিন ধরনের সাক্ষাৎকার হয়ে থাকে। সেখানে তারা আপনার কাছ থেকে কি চাচ্ছে সেটা বুঝতে হবে।

ওয়ান টু ওয়ান সাক্ষাৎকার – এটি খুবই সাধারন পদ্ধতি। এখানে আপনি শুধুমাত্র একজন ব্যক্তি (সাধারণত বস!) দ্বারা প্রশ্ন এবং উত্তর অধিবেশন সম্পূর্ণ করতে পারবেন। এই পদ্ধতিতে বস ছাড়া অন্য কেও আপনাকে প্রশ্ন করবে না কিংবা রুম এ অবস্থান করবে না।

প্যানেল ইন্টারভিউ –  এই পদ্ধতিতে এক সময়ে একাধিক ব্যক্তির দ্বারা যাচাই কিংবা নানা ধরনের প্রশ্নের সম্মুখীন হতে হবে- আপনার কক্ষে  দুই বা ততোধিক সাক্ষাৎকার উপস্থিত থাকবে।

প্রতিযোগিতা সাক্ষাৎকার – সবচেয়ে উন্নত ইন্টারভিউ ধরন। ধরুন ১০০জন লোককে নিয়োগ দেয়া হবে কিন্তু আবেদন করেছে ১০০০জন তাহলে নানা রকমের যাচাই বাছাই এর মধ্য দিয়ে চাকরি প্রদান করা হবে। এর জন্য লিখিত, মৌখিক এবং সরাসরি ভাইবা পরিক্ষা হতে পারে।

২. কি পরিধান করা উচিত?

কথায় আছে, আগে করো দর্শনদারী পরে হল গুন বিচারি। তাই চাকরির ইন্টারভিউ দিতে যাওয়ার আগে পরিষ্কার মার্জিত ফরমাল ড্রেস পরিধান করতে হবে। কারন আপনার রুচির উপর নির্ভর করবে আপনার পরিবেশ। তাই পোশাক এর প্রতি যত্নশীল হন।

৩. কি কি বিষয়ে প্রশ্ন করতে পারে? আগেই নিয়ম কানুন জানুন… 

আপনি যে পদের জন্য চাকরির ইন্টারভিউ দিতে যাচ্ছেন আগে সেই বিষয়ে ধারনা নিয়ে তারপর চাকরির ইন্টারভিউ দিতে যান। কারন প্রশ্নের উত্তর দিতে না পারলে আপনাকে আপমানের শিকার হতে পারে। তাই আগে থেকেই পূর্ব প্রস্তুতি নেয়া ভালো।

৪. মার্জিত ভাষা ব্যবহার করুন 

শুদ্ধ ভাবে কথা বলা ব্যক্তিরা অন্যদের থেকে একটু বেশি মনে জায়গা গেথে নেয়। তাই নিজের ভাষার প্রতি মনযোগী হতে পারেন। আঞ্চলিক ভাষা এরিয়ে চলাই মঙ্গল ।

৫. প্রশ্ন করতে ভুলবেন না কিন্তু 

চাকরির ইন্টারভিউ এর শেষে আপনাকে কোম্পানি বিষয়ে প্রশ্ন করতে বলা হতে পারে তখন আপনি কিন্তু ভুলবেন না প্রশ্ন করতে। যদি প্রশ্ন না করেন তাহলে আপনাকে সাহসী নয় বরং দুর্বল ভাবতে পারে চাকরির ইন্টারভিউরত বস.

টপিক

আরো পড়ুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Close
Close