যারা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি প্রস্তুতি নিচ্ছেন তাদের জন্য কিছু পরামর্শ

321

এইচ.এস.সি পরীক্ষার পরের এই সময়টি একজন শিক্ষার্থীর জন্য সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ সময়। এই সময় এর একটি সিদ্ধান্ত বদলে দিবে আগামির পথচলা। আপনারা যারা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি প্রস্তুতি নিচ্ছেন তাদের জন্য কিছু পরামর্শঃ

  • কোচিং এ জাস্ট পুতুল হয়ে বসে থাকার জন্য ক্লাস করে লাভ নাই। কনফিউশন থাকলে প্রশ্ন করো। যেটা বুঝো না সেটা জিজ্ঞাসা করো। ওমুকে কি বলবে, তমুকে কি ভাববে সেটা নিয়ে টেনশনের কিছু নাই। ক্লাসের পরেও টিচারদের সাথে কথা বলতে পারবা।
    .
  • যেদিন যেটা পড়াবে সেইদিন ই সেটা কমপ্লিট করে ফেলার চেষ্টা করবা। একরাত না ঘুমালে লাইফ শেষ হয়ে যাবে না।
  • পড়াশোনা করে ডেইলি, উইকলি, মান্থলি পরীক্ষাগুলো খুব সিরিয়াসলি দাও। আগের ব্যাচের থেকে প্রশ্ন নিয়ে পরীক্ষায় কোপ দেয়ার চিন্তা থাকলে নিজের পায়ে নিজে কুড়াল মারার শামিল হবে।
    .
  • ইঞ্জিনিয়ারিং কোচিং যাদের মাথার উপর দিয়ে যাচ্ছে তারা নিজেদের বেসিক ঘষামাজা করে ক্লাসে এটেন্ড করো। তাহলে দেখবা ক্লাসগুলো ক্যাচ করতে পারছো। উদাহরন হিসেবে বলা যায় ফিজিক্সের কোন একটা চ্যাপ্টারের কনসেপ্ট+ম্যাথ প্র‍্যাকটিস করে ক্লাসে এটেন্ড করো। ক্লাসকে হিব্রু ভাষা মনে হবে না।
    .


  • ইশ ইন্টার আরেকটু ভালো মতো দিলে কি হতে পারতো টাইপের কল্পনা থেকে নিজেকে সরিয়ে রাখো। যেটা হয়ে গেছে সেটা নিয়ে আহা উহু করে সময় নষ্ট করে কি লাভ??

.

  • অমুক গাইডে সব আছে টাইপের চিন্তা করে একগাদা গাইড কিনে পড়ার টেবিল ভরে ফেইলো না। কোন বই এই “সবকিছু” নাই। থাকবেও না। যেকোন একটা কিনলেই পারো। না কিনলেও কোন ক্ষতি নাই।
    .
  • অমুক কোচিং এ পড়ে অমুক ভার্সিটিতে চান্স পাইসে, অমুক ভাই এক টেকনিকে ১০০ ম্যাথ করাইতে পারে টাইপের চটকদার বিজ্ঞাপন পড়ে/শুনে যেখানে সেখানে দৌড় দিও না। আসলে যারা চান্স পাওয়ার তারাই চান্স পায়। ওরা কোচিং এ না পড়লেও চান্স পেতো। ক্রেডিট অলওয়েজ স্টুডেন্টের। কোন কোচিং অথবা স্যার এর নয়।
    .
  • প্রতিদিন পড়বা। যতোটা সময় পারো পড়বা। একদিন না পড়ে পরেরদিন বেশি পড়ে পোষানোর চিন্তা বাদ দাও।

  • ৩ মাস সময় যতো বেশি মনে হচ্ছে আসলে তা নয়। দেখতে দেখতেই দেখবা এডমিশন টেস্ট চলে এসেছে। এই সময়ের মাঝেই পুরো সিলেবাস কমপ্লিট করে রিভাইস করতেই হবে। তবেই চান্স পাওয়ার সম্ভাবনা থাকবে।
    .
    পরিশেষে বলা যায়, এডমিশন টেস্টের প্রিপারেশন প্রকৃতপক্ষে তোমার পড়াশোনার যেমন একটা পরীক্ষা ঠিক তেমনি মেন্টালি কতোখানি প্রেশার নিতে পারো তার ও একটা পরীক্ষা। প্রথম থেকেই যথেষ্ট পড়াশোনা না করলে কক্ষনোই কুলিয়ে উঠতে পারবা না। তাই প্রথম থেকেই সবাই সিরিয়াস থাকবা এটাই পরামর্শ রইলো।