প্রাথমিক ও ইবতেদায়ী শিক্ষা সমাপনী বৃত্তির ফলাফল

179

২০১৭ সালের প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী বৃত্তি ফলাফল আজ ৩ই এপ্রিল দুপুরে ঘোষণা করা হইয়েছে। আজ সচিবালয়ে সংবাদ সম্মেলনে প্রাথমিক ও গণশিক্ষামন্ত্রী মোস্তাফিজুর রহমান আনুষ্ঠানিকভাবে বৃত্তির ফল ঘোষণা করেন।

এবার বৃত্তিপ্রাপ্ত শিক্ষার্থীর সংখ্যা বৃদ্ধির পেয়ে সাধারণ কোটায় ৪৯ হাজার ৫শ’ এবং মেধা কোটায় (ট্যালেন্টপুল) ৩৩ হাজার জনকে বৃত্তি দেওয়া হচ্ছে। এবার বৃত্তি প্রাপ্ত শিক্ষার্থীর সংখ্যা বৃদ্ধির পাশাপাশি বৃত্তির অর্থের পরিমাণও বাড়ানো হয়েছে। চলুন জেনে নেওয়া যাক এই সংক্রান্ত বিস্তারিত তথ্য…

প্রাথমিক বৃত্তি দুটি বিভাগে প্রদান করা হয়। সেগুলো হলোঃ

  • ট্যালেন্টপুল বৃত্তি ও
  • সাধারন বৃত্তি।

বৃত্তির অর্থের পরিমাণঃ

  • ট্যালেন্টপুল বৃত্তি প্রাপ্ত শিক্ষার্থীদের ক্ষেত্রেঃ প্রতিমাসে ৩০০ টাকা করে প্রতি বছর ৩ হাজার ৬০০ টাকা প্রদান করা হবে।
  • সাধারণ বৃত্তি প্রাপ্ত শিক্ষার্থীদের ক্ষেত্রেঃ প্রতিমাসে ২২৫ টাকা করে প্রতি বছর দুই হাজার ৭০০ টাকা।

বৃত্তির মেয়াদঃ

  • ট্যালেন্টপুল ও সাধারণ বৃত্তি উভয় ক্ষেত্রে বৃত্তির মেয়াদ ৩ বছর (ষষ্ঠ থেকে অষ্টম শ্রেণি পর্যন্ত)।

উক্ত ফলাফল প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের ওয়েবসাইটের পাশাপাশি আপনাদের সুবিধার্থে পড়ালেখা বিডি এর এই পোস্ট থেকেও দেখা যাবে।

অফিসিয়াল সাইট থেকে ফলাফল দেখতে এখানে ক্লিক করুন

প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী বৃত্তি ফলাফল ২০১৭ (সকল জেলা) ডাউনলোড করুন।

ইবতেদায়ী শিক্ষা সমাপনী বৃত্তি ফলাফল ২০১৭ (সকল জেলা) ডাউনলোড করুন

মোবাইলে এসএমএসের মাধ্যমে ফলাফল জানার পদ্ধতিঃ

সাধারণ শিক্ষার্থীদের জন্য:

DPE<space>Thana/Upazila Code No.<space>Roll Number<space>Year and Send to 16222

এবতেদায়ী শিক্ষার্থীদের জন্য:
EBT<space>Thana/Upazila Code Number<space>Roll Number<space>Year and Send to 16222

ঝরে পড়া রোধ, উপস্থিতি বাড়ানো, মেধার স্বীকৃতি ও সুষম মেধা বিকাশের লক্ষ্যে সমাপনী পরীক্ষার উপর ভিত্তি করে উপজেলাভিত্তিক বৃত্তি দিয়ে আসছে সরকার। প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনীতে উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীদের মধ্য থেকে বৃত্তি দেওয়া হয়।

এর আগে পঞ্চম শ্রেণীর শিক্ষার্থীদের আলাদা পরীক্ষা নিয়ে বৃত্তি দেয়া হলেও ২০১০ সাল থেকে সমাপনী পরীক্ষা চালুর পর এ পরীক্ষায় উত্তীর্ণদের মধ্য থেকেই উপজেলাভিত্তিক বৃত্তি দেওয়া হচ্ছে।

উল্লেখ্য, ২০১৭ সালের প্রাথমিক ও ইবতেদায়ী সমাপনী পরীক্ষা ১৯ নভেম্বর থেকে ২৬ নভেম্বর শেষ হয়। প্রাথমিক সমাপনীতে ২৮ লাখ ৪ হাজার ৫০৯ জন এবং ইবতেদায়ীতে দুই লাখ ৯১ হাজার ৫৬৬ জন শিক্ষার্থী অংশ নেয়। পরীক্ষা শেষে ৩০ ডিসেম্বর প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষার ফল প্রকাশ করা হয়।