জেএসসি ও জেডিসি পরীক্ষার ফলাফল পুনঃনিরীক্ষণ করতে চান? নিয়মাবলী জেনে নিন এখান থেকে

378

২০১৪ সালের জে.এস.সি ও  জেডিসি পরীক্ষার ফলাফল ৩০ ডিসেম্বর প্রকাশিত হয়েছে। এ বছর জে.এস.সি তে পাসের হার ৮৯.৮৫ শতাংশ। জেডিসি-তে ৯৩.৫০। জেএসসি-জেডিসির গড় পাসের হার ৯০.৪৩। অর্থাৎ গড়ে ৯.৫৭% শিক্ষার্থী ফেইল করেছে। যারা ভালো পরীক্ষা দিয়েও ফেইল করেছে কিংবা আশানুরূপ ফল পাইনি আমার আজকের টিউন তাদের জন্যে। এই টিউনে আমি আজকে জানাবো কিভাবে জেএসসি ও জেডিসি পরীক্ষার ফলাফল পুনঃনিরীক্ষণ করতে হয়। প্রথমেই জেনে নেওয়া যাক ফলাফল পুনঃমূল্যায়ন কি?

ফলাফল পুনঃনিরীক্ষণ কিঃ

এসএসসি কিংবা এইচএসসি এর মত জেএসসিতেও পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশের পর দিন থেকে বাংলাদেশের সকল মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডগুলো আশানুরুপ না হওয়াতে যে সকল শিক্ষার্থীদের মনে অনিশ্চয়তা থাকে তাদের জন্যে খাতা পুনঃমূল্যায়ন এর সুযোগ দিয়ে থাকে যা “ফলাফল পুনঃমূল্যায়ন”, “পুনঃনিরীক্ষণ”, “খাতা চ্যালেঞ্জ”, “Rescrutiny” ইত্যাদি নামে পরিচিত। অনেকের ধারণা বোর্ড কতৃপক্ষ খাতা পুনঃমূল্যায়ন করে। কিন্তু আসলে এই প্রক্রিয়ায় বোর্ড থেকে যা করা হয় তা হল, নম্বর গণনা কিংবা কোথাও নম্বর প্রদানে ভুল ভ্রান্তি ভ্রান্তি হয়েছে কিনা সেসব বিষয় মিলিয়ে দেখা হয়।

কিভাবে ফলাফল পুনঃনিরীক্ষণ করবেনঃ

ফলাফল পুনঃমূল্যায়ন করতে বোর্ড এ যাওয়ার কোন প্রয়োজন নেই। চাইলে ঘরে বসে মোবাইল থেকেই ফলাফল পুনঃমূল্যায়ন এর জন্যে আবেদন করতে পারবেন। তার জন্যে যা যা লাগবেঃ

  • টেলিটক সংযোগ সহ একটি মোবাইল ফোন। (শুধুমাত্র টেলিটক আপারেটর থেকেই ফলাফল পুনঃমূল্যায়ন সম্ভব কিন্তু যাদের টেলিটক সিম নেই তাদের চিন্তার কিছু নেই, তারাও চাইলে অন্য কারো সিম ব্যবহার করে অথবা ফলাফল পুনঃমূল্যায়ন এর আবেদন করে এ ধরণের কোন দোকান থেকেও আবেদন করতে পারবেন)
  • মোবাইলে পর্যাপ্ত পরিমাণ ব্যানান্স (প্রতিটি বিষয়ের আবেদনের জন্যে মোবাইল থেকে আবেদন ফি বাবদ ১২৫ টাকা করে কেটে নেওয়া হবে। যে সকল বিষয়ের ২ টি পত্র রয়েছে যেমনঃ বাংলা ও ইংরেজি সে সকল বিষয়ের ক্ষেত্রে একটি বিষয় কোডের বিপরিতে ২ টি পত্রের আবেদন বলে গণ্য হবে তাই এ ক্ষেত্রে খরচ পরবে ২৫০ টাকা)
  • আপনার সাথে যোগাযোগ এর একটি ব্যক্তিগত নম্বর (বাংলাদেশের যে কোন অপারেটর এর নম্বর দিতে পারবেন)

আবেদন করতে এসএমএস করবেন যেভাবেঃ

মোবাইল এর ম্যাসেজ অপশন এ গিয়ে লিখবেন-

RSC<স্পেস>আপনার বোর্ড এর নামের প্রথম ৩ অক্ষর<স্পেস>রোল নম্বর<স্পেস>বিষয় কোড

উদাহরণঃ যশোর বোর্ড এর কোন শিক্ষার্থীর রোল নম্বর যদি হয় 259663 তার বাংলার জন্যে আবেদন করতে লিখতে হবে এভাবেঃ RSC<স্পেস>JES<স্পেস>259663<স্পেস>101

এর পর ম্যাসেজটি 16222 এই নম্বরে পাঠাতে হবে।

উল্লেখ্য আপনি একটি এসএমএস এ একসাথে একাধিক বিষয়ের জন্যে আবেদন করতে পারবেন। সেক্ষেত্রে কমা (,) দিয়ে বিষয়গুলোর কোড আলাদাভাবে লিখতে হবে। যেমন বাংলা ও ইংরেজি দুটি বিষয়ের আবেদন করতে হবে এভাবেঃ

RSC<স্পেস>JES<স্পেস>259663<স্পেস>101,107

এক্ষেত্রে প্রতিটি বিষয়ের এবং প্রতিটি পত্রের জন্যে ১২৫ টাকা করে চার্জ করা হবে।

ফিরতি এসএমএস এ কত টাকা কেতে নেওয়া হবে জানিয়ে আপনাকে একটি পিন নম্বর দেওয়া হবে। আপনি রাজি থাকলে এর পর ম্যাসেজ অপশন এ গিয়ে লিখবেনঃ

RSC<স্পেস>YES<স্পেস>পিন নম্বর<স্পেস>আপনার সাথে যোগাযোগের একটি নম্বর (যে কোন অপারেটর এর)

উদাহরনঃ ধরুন ফিরতি এসএমএস এ প্রদত্ত আপনার পিন নম্বর হল 12345 এবং আপনার মোবাইল নম্বর 01913XXXXXX সেক্ষেত্রে আবেদন করবেন এভাবেঃ

RSC<স্পেস>YES<স্পেস>12345<স্পেস>01913XXXXXX

ব্যাস উপরের প্রক্রিয়াগুলো যদি আপনি সঠিক ভাবে অনুসরণ করে থাকেন তাহলে সফলভাবে আপনার ফলাফল পুনঃমূল্যায়ন প্রক্রিয়া সম্পন্ন হয়েছে।

আবেদনের সময়সীমাঃ

এই প্রক্রিয়া সাধারণত পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশ হওয়ার পরদিন থেকে এক সপ্তাহব্যাপী চলে। ২০১৭ সালের জেএসসি ও জেডিসি এর ফলাফল পুনঃমূল্যায়ন প্রক্রিয়া ৩১-১২২০১৭ তারিখ থেকে ০৬-০১-২০১৮ তারিখ রাত ১১ টা ৫৯ মিনিট পর্যন্ত চলবে। তাই দেরি না করে আজই আবেদন করে ফেলুন আর দূর করে ফেলুন ফলাফল নিয়ে আপনার মনের সকল অনিশ্চয়তা!

জেএসসি ও জেডিসি পরীক্ষার ফলাফল পুনঃনিরীক্ষণ এর ফলাফল দেখার নিয়মঃ

জেএসসি ও জেডিসি পরীক্ষার ফলাফল পুনঃনিরীক্ষণ এর ফলাফল সাধারণত পুনঃনিরীক্ষণ এর আবেদন করার সময় আপনার সাথে যোগাযোগের জন্যে যে নম্বর প্রদান করেছিলেন উক্ত নম্বরে (আপনার ফলাফল পরিবর্তন হলে) ফলাফল প্রকাশের ফর স্বয়ংক্রিয়ভাবে পাঠিয়ে দেওয়া হবে। তাছাড়া প্রতিটি শিক্ষা বোর্ডের ওয়েবসাইটে আলাদাভাবে পিডিএফ আকারে শুধুমাত্র যাদের ফলাফল পরিবর্তন হয়েছে তাদের ফলাফল প্রকাশ করা হয়। সকল বোর্ড এর জেএসসি ও জেডিসি পরীক্ষার ফলাফল পুনঃনিরীক্ষণ এর ফলাফল একসাথে পাবেন এই লিঙ্কে